Notice :
  1. সবাইকে স্বাগতম ইসলামিক স্টরি বিডি ডটকম এ

তাহিয়্যাতুল মসজিদ এবং মাকরুহ ওয়াক্ত


বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম


*প্রশ্ন-উত্তর*
*বিষয়ঃ-তাহিয়্যাতুল মসজিদ এবং মাকরুহ ওয়াক্ত।


*প্রশ্নঃ-
তাহিয়্যাতুল মসজিদ নামাজ পড়ার হুকুম কি? এবং কোন কোন সময় নামাজ পড়া মাকরুহ? এই মাকরুহ সময়গুলোতেও কি? তাহিয়্যাতুল মসজিদ নামাজ পড়া যাবে?

*উত্তর:-**الجواب باسم ملهم الصدق والصواب*
রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেনঃ-
إذا دخل احدكم المسجد فليركع ركعتين قبل ان يجلس
অর্থঃ- তোমরা যখন মসজিদে প্রবেশ করবে, বসার পূর্বে দু’রাকাত নামাজ পড়ো।
তাই মসজিদে প্রবেশ করে, দুই রাকাত তাহিয়্যাতুল মসজিদ নামাজ পড়া সুন্নত।

*👉 বুখারী শরীফ (দারুল হাদিস) খঃনঃ ০১,পৃঃনঃ ১২২, হাদিস নঃ ৪৪৪,*

নির্ভরযোগ্য মতানুযায়ী সূর্যোদয় এবং তারপর দশ মিনিট ,দ্বিপ্রহর এবং তার আগে-পরে ছয় মিনিট, এবং সূর্যাস্ত ও তার পূর্বে 10 মিনিট , মাকরুহ ওয়াক্ত বলে গণ্য হবে।

সময়গুলোতে যে কোন ধরনের নামায(ফরজ, ওয়াজিব, সুন্নত ও নফল) পড়া মাকরুহ। তবে ওই দিনের আসরের নামায, মাকরুহ ওয়াক্তের পূর্বে পড়তে না পারলে, উক্ত সময়ে তা আদায় করে নিলে আদায় হয়ে যাবে।

*👉 রদ্দুল মুহতার (সাঈদ)খঃ নঃ ০২,পঃ নঃ ৩৮,*
*👉 আহসানুল ফাতাওয়া (সাঈদ)খঃনঃ ০২, পৃঃ নঃ১৪১,*

আরো দুটি সময় রয়েছে যে সময়ে শুধু নফল        নামাজ পড়া মাকরুহ।


(১) আসরের নামাজের পর যে কোন নফল নামাজ পড়া মাকরুহ।

(২) সুবহে সাদিকের পর থেকে সূর্যোদয় পর্যন্ত, ফজরের দুই রাকাত সুন্নত ব্যতীত, অন্য নফল নামাজ পড়া মাকরুহ।

এজন্য এ সময়গুলোতে তাহিয়াতুল মসজিদ পড়া ও মাকরুহ। এ সময়গুলো ব্যতীত যখন মসজিদে প্রবেশ করবে, তখন দু’রাকাত তাহিয়্যাতুল মসজিদ নামাজ পড়া সুন্নত।

*👉 আল হিদায়াহ খঃনঃ ০১,পৃঃনঃ ৮৫,*
*👉 আল বাহরুর রায়েক খঃনঃ ১,পৃঃনঃ৪৩৮,*

আরো পড়ুন


ইজতিহাদের যোগ্যতা কারা


ইজতিহাদী শক্তি আল্লাহ প্রদত্ত এক বাতিনী শক্তি। উক্ত শক্তি আল্লাহপাক সাহাবায়ে কেরাম ও তাবেঈনের তাবেঈন যুগেও হাজারে দু-চারজনকে দান করেছিলেন।

তাছাড়া ইজতিহাদ করার জন্য মুজাহিদ ব্যক্তিকে কোরআন হাদিসের ব্যাপারে পারদর্শী হতে হবে।কুরআন মাজিদের সমস্ত আয়াতের বিশেষ করে আকরামের আয়াতগুলোর ছহীহ অর্থ ওতাফসীরের ব্যপারে তার পূর্ণ ইলম থাকতে হবে।

আল্লাহ তাআলা আমাদের সকল উম্মতে মুসলিমদেরকে এ কথা গুলোর উপর আমল করার মত তৌফিক দান করুক।

আমিন

 এলেম শিক্ষা করা প্রত্যেক মুসলমানের উপর ফরজ।

 

Please Share This Post in Your Social Media

© 2020 islamicstorybd.com